ইসলামি জাতীয়তা এবং উলামায়ে কেরামের স্বকীয়তা

ইসলামি জাতীয়তা এবং উলামায়ে কেরামের স্বকীয়তা

পুরো পৃথিবী আজ ভৌগলিক জাতীয়তার বন্ধনে আবদ্ধ। এর ভিত্তিতেই গড়ে উঠছে ভালোবাসা ও ঘৃণা, শত্রুতা ও মিত্রতা। ইসলামি জাতীয়তা কী? ভালোবাসা এবং ঘৃণার ক্ষেত্রে নবি সা. এবং সাহাবিগণের আদর্শ কী? নিজেদের মৌলিক আদর্শ রক্ষায় উলামায়ে ইসলামের অবদানই বা কী? এ সকল বিষয়ের আলোচনা উঠে...
মুক্তি-আশে বহে যাবে সকরুণ সুর শূন্যপথে

মুক্তি-আশে বহে যাবে সকরুণ সুর শূন্যপথে

মানুষ অনুকরণপ্রিয় জীব। সে কাউকে অনুসরণ করতে ভালোবাসে, অনুকরণ করতে ভালোবাসে। সেই শৈশব থেকে কৈশোর, তারুণ্য থেকে যৌবন, জীবন থেকে মরণ—জীবনের প্রতিটি পর্যায়ে কারও আদর্শ আঁকড়ে থাকতে মানুষ পছন্দ করে। আদর্শের জায়গাটি কখনো খালি থাকে না। হয়তো সে জায়গাটি ভালো কোনো আদর্শের দখলে...
চাচা আবু তালিবের কাছে বিচার

চাচা আবু তালিবের কাছে বিচার

ফিকহুস সিরাত – ৯    আবু তালিব কুরাইশদের ধর্মেরই একজন অনুসারী ছিল। ভাতিজা মুহাম্মাদের কর্মকাণ্ডের ব্যাপারে তার দৃষ্টিভঙ্গি এবং অবস্থান অন্যা্ন্যদের মতো হবে এটাই স্বাভাবিক ছিল। এ কারণে কুরাইশের অন্যান্য নেতৃবর্গ আবু তালিবের কাছে বিচারপ্রার্থী হলো। তারা এসে বলল,...
প্রকাশ্য দাওয়াতের সূচনা

প্রকাশ্য দাওয়াতের সূচনা

ফিকহুস সিরাত – ৮    নবুওয়াতের তিন বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর যখন কিছু মানুষ ইসলামে প্রবেশ করে তখন আল্লাহ তাআলা তার প্রিয় রাসুল সা.কে প্রকাশ্যে দাওয়াত প্রদানের জন্য নির্দেশ দেন। সে সময়ে কুরআনের এই আয়াত দুটি অবতীর্ণ হয়— অতএব আপনাকে যা আদেশ করা হয় আপনি তা প্রকাশ্যে...
দাওয়াতের প্রাথমিক পর্যায়

দাওয়াতের প্রাথমিক পর্যায়

ফিকহুস সিরাত – ৭    আল্লাহ তাআলা যখন সুরা মুদ্দাসসিরের এই আয়াতগুলো অবতীর্ণ করেন— হে চাদরাবৃত, ওঠো এবং মানুষদের সতর্ক করো আর তুমি নিজ প্রতিপালকের বড়ত্ব ঘোষণা করো।[1] তখন থেকে রাসুলুল্লাহ সা.’র দাওয়াতি কার্যক্রম গোপনীয়তার সাথে শুরু হয়। দাওয়াতের এই ধারা বহাল ছিলো...
ওহি অবতরণের বিরতি

ওহি অবতরণের বিরতি

হেরা গুহায় জাগরণের অবস্থায় প্রথম ওহিস্বরূপ মহাগ্রন্থ আল-কুরআনের সুরা আলাকের প্রথম পাঁচ আয়াত অবতীর্ণ হওয়ার পর দীর্ঘদিন পর্যন্ত আর কোনো ওহি অবতীর্ণ হয়নি।[1] এ সময়টা রাসুলুল্লাহ সা.-এর জন্য অত্যন্ত কঠিন সময় ছিলো। সহিহ বুখারির সূত্রে ওপরে ওয়ারাকা রা.-এর কথা উল্লেখিত...