আল্লাহ কোথায়

যদি কেউ প্রশ্ন করে, আল্লাহ কোথায়? আমরা ইমামগণের বক্তব্যের আলোকে তার প্রশ্নের উত্তর দেবো। 1.         ইমাম আবু হানিফা রহ.-কে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, আল্লাহ কোথায়? তিনি বললেন : كان الله تعالى ولا مكان، كان قبل أن يخلق الخلق، كان ولم يكن أين ولا خلق ولا شىء، وهو خالق كل شىء যখন কোনো স্থানই ছিল না, তখনো […]

প্রচলিত ‘আল-ইবানাহ’ কিতাবটি কি ইমাম আবুল হাসান আশআরির রচনা?

আমাদের সহিহ আকিদার দাবিদার ভাইয়েরা মাঝেমধ্যে অসহিহ কাজ করেন। ‘আল-ইবানাহ’ কিতাবটিকে এখন যে রূপে আমরা দেখতে পাচ্ছি, ইমাম আবুল হাসান আশআরি রহ. কি কিতাবটিকে এভাবেই রচনা করেছিলেন, নাকি কোনো ফিরকা তাতে বিকৃতি সাধন করেছে, যেমনিভাবে ইহুদি ও খ্রিষ্টানরা তাওরাত ও ইঞ্জিলে বিকৃতি সাধন করেছে? এ লেখায় আমরা সে বিষয়টির ওপরই সংক্ষিপ্ত আলোকপাত করার চেষ্টা করব। […]

ইমানের পরিচয়

ইমানের পরিচয় আল্লামা সায়্যিদ মাহমুদ আলুসি বাগদাদি রহ. বলেন, الإيمان هو التصديق بما علم مجيئ النبي به ضرورة، تفصيلا فيما علم تفصيلا وإجمالا فيما علم إجمالا تصديقا جازما ولو من غير دليل. ইমান হলো এমন সব বিষয়কে সুদৃঢ়ভাবে সত্য বলে স্বীকার করে নেওয়া, যা রাসুলুল্লাহ সা.-এর আনীত দীনের অন্তর্ভুক্ত হওয়ার ব্যাপারটি আবশ্যিকভাবে বিদিত হয়েছে। যে […]

সত্যান্বেষীদের উদ্দেশে ‘তাফবিযে’র ব্যাপারে উম্মাহর ইজমা

ইমামুল হারামাইন জুওয়াইনি রহ. বলেন, ‘কুরআন-সুন্নাহর দলিল এ ব্যাপারে অকাট্য নির্দেশনা দেয় যে, উম্মাহর ইজমা অনুসরণীয় প্রমাণ। তা হলো শরিয়াহর বড় অংশের ভিত্তি। রাসুলুল্লাহ সা.-এর সাহাবিরা ক্রমে ক্রমে পৃথিবী থেকে বিদায় গ্রহণ করেছেন এমতাবস্থায় যে, রাসুলুল্লাহ সা. তাদের ওপর আল্লাহ তাআলার সিফাতবিশিষ্ট আয়াত-হাদিসের অর্থ নিয়ে চিন্তা-ভাবনা-আলোচনা এবং তার তাৎপর্য বিশ্লেষণ পরিত্যাগ করার ওপর সন্তুষ্ট ছিলেন। […]

‘তাফবিয’ প্রসঙ্গে নব্য সালাফিদের দলিল-বিকৃতির নমুনা

নব্য সালাফিরা এ কাজটিতে বেশ পারঙ্গম। শাইখ আসাদুল্লাহ আল-গালিব যেমন সালাফের বক্তব্য থেকে ‘আহলুল হাদিস’ (মুহাদ্দিস অর্থে) শব্দগুলোকে বের করে এনে জাতির সামনে এ বলে প্রদর্শন করেন যে, দেখেছো, সালাফগণ ‘আহলে হাদিসে’র শানে এই বলেছেন-সেই বলেছেন। নব্য সালাফিরা তাদের কাল্পনিক ‘ইসবাত’ (শব্দের প্রকৃত বাহ্যিক অর্থ সাব্যস্ত করা এবং তার রূপের জ্ঞান আল্লাহর ইলমের দিকে ন্যস্ত […]

‘তাফবিয’ সমাচার

আল্লাহ তাআলা বলেন, ‘সুতরাং যদি তোমাদের জানা না থাকে, তাহলে জ্ঞানীদেরকে জিজ্ঞেস কোরো।’ {সুরা নাহল: ৪৩} শরিয়াহর শিক্ষা এটাই। আল্লাহ আরও বলেন, ‘যে বিষয়ে তোমার জ্ঞান নেই তুমি তার পেছনে পোড়ো না।’ {সুরা ইসরা: ৩৬} অর্থাৎ কোনো বিষয়ে কারও জ্ঞান না থাকলে সে বিষয়ে নীরব থাকা উচিত। ধারণার ভিত্তিতে কথা বলা, বিশেষত স্পর্শকাতর ইস্যুতে অভিমত […]

ইমাম আবু হানিফার তথাকথিত ‘আহলুস সুন্নাহ’ (নব্য সালাফি)-বিরোধী আকিদা

সালাফি ভাইরা বলে থাকে, তোমরা ইমাম আবু হানিফাকে বাদ দিয়ে আকিদার ক্ষেত্রে বিদআতি ইমাম আশআরি-মাতুরিদির অনুসরণ করো কেন? ইমাম আবু হানিফার অনুসরণ করলেই তো হয়। তাঁর আকিদা আর অন্যান্য সালাফের আকিদা এক। (তাদের এই শেষ কথাটির কথার ভিত্তি হলো ইমাম ইবনু তাইমিয়ার একটি বক্তব্য) আর সালাফের আকিদাধারীদেরই সালাফি বলা হয়। তারা ভাবে, আমরা বুঝি সালাফে […]

নব্য সালাফি মতবাদের অসারতার একটি নমুনা

সালাফি ভাইরা বলে থাকেন, ‘আল্লাহ তাআলা নিজের জন্য যে-সকল সিফাত সাব্যস্ত করেছেন, আমরাও তার জন্য সে-সকল সিফাত সাব্যস্ত করবো।’ এটা তো সুন্দর কথা। এক্ষেত্রে আমরাও তাদের সঙ্গে একমত। কিন্তু এর পরক্ষণেই তারা বলেন, ‘আমরা আল্লাহ তাআলার থেকে শুধু সে-সকল বিষয়কেই নিরোধ করবো, যা তিনি তার থেকে নিরোধ করেছেন।’ অর্থাৎ যে বিষয়গুলো নসে উল্লেখ করে আল্লাহ […]

কাল্পনিক ‘ইসবাত’ সমাচার

আমরা মানুষদের আশআরি বা মাতুরিদি মতবাদের দিকে দাওয়াত দিই না। আমরা মানুষদের মহান সালাফের পথের দিকে আহ্বান করি। বিকৃত সালাফিয়াত নয়, বরং প্রকৃত সালাফিয়াত। সালাফের অধিকাংশ আল্লাহর সিফাতের মাসআলায় ‘তাফবিয’ করেছেন। (এ বিষয়টি বিস্তর আলোচনার দাবি রাখে। যার জন্য স্বতন্ত্র নিবন্ধ প্রয়োজন।) তাদের কেউ কেউ ‘ইসবাত’ও করেছেন আর কেউ কেউ ‘তাবিল’ও করেছেন। সপ্তম শতাব্দীতে এসে […]

একজন ইমাম আবুল হাসান আশআরি এবং তাবিলের ‘বিদআত’-এর ঘৃণ্য অপবাদ

মহান ইমাম আবু বকর বায়হাকি রহ. (মৃত্যু: ৪৫৮ হিজরি) বলেন, ‘অবশেষে আক্রমণ এসে পৌছলো আমাদের শাইখ আবুল হাসান আশআরির দিকে। তিনি আল্লাহর দীনে নতুন কিছু উদ্ভাবন করেননি এবং কোনো বিদআত আনয়ন করেননি। বরং তিনি উসুলুদ দীন (দীনের মৌলিক বিধান অর্থাৎ আকিদা)-এর ক্ষেত্রে সাহাবা তাবেয়িন এবং তৎপরবর্তী ইমামগণের মতামত গ্রহণ করেছেন। তিনি আরও বিস্তর ব্যাখ্যা এবং […]